সোমবার , সেপ্টেম্বর ২৭ ২০২১
   সোমবার|১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ|২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
    ১৯শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি
Breaking News
লকডাউনে ঘরে বসেই অনলাইনে ক্লাস করছে শিক্ষার্থীরা

করোনা মহামারিতে বিদ্ধস্ত শিক্ষা ব্যবস্থার আইসিইউ ই-লার্নিং পদ্ধতি

একে এম ফখরুল আলম বাপ্পী চৌধুরী : অগনিত সম্ভাবনাময় প্রাণ, এক সাগর রক্তের বিনিময়ে আমরা অর্জন করেছি স্বপ্নের স্বাধীনতা, পেয়েছি ছাপ্পান্ন হাজার বর্গমাইলের স্বাধীন ভূখন্ড, পেয়েছি লাল-সবুজের পতাকা, সেই ক্রমধারায় স্বাধীনতার ৫০ বছর পর একুশ শতকে পিছিয়ে থাকা বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ হিসাবে গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়ে ৬ জানুয়ারী ২০০৯ইং শেখ হাসিনা বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দ্বিতীয় বারের মতো শপথ নেন। ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালনের বছরে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশ এবং তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মান ছিল একটি প্রত্যয়, একটি স্বপ্ন।
১২ই ডিসেম্বর ২০০৮ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ তাদের নির্বাচনী ইশতেহারে ঘোষনা করে ২০২১ সালে স্বাধীনতার ৫০ বছরে বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত হবে। একটি উন্নত দেশ, সমৃদ্ধ ডিজিটাল সমাজ, একটি ডিজিটাল যুগের জনগোষ্ঠি, রূপান্তরিত উৎপাদন ব্যবস্থা, নতুন অর্থনীতি সবমিলে একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গঠনের স্বপ্নই দেখেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি ১২ই নভেম্বর ২০০৯ইং এ ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ সামিট’ নামক এই বিষয়ে প্রথম শীর্ষ সম্মেলন আয়োজন করেন। যাতে ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা এবং অগ্রধিকারের বিষয়গুলো আলোচিত হয়। আর এভাবে বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী কর্মসূচি গ্রহণের মাধ্যমে বাংলাদেশ একটি ডিজিটাল বাংলাদেশ এ পরিণত হওয়ার পথে এগিয়ে চলছে।


প্রযুক্তি হলো মানব সভ্যতার কাছে বিজ্ঞানের এক আশীর্বাদ। যাকে কাজে লাগিয়ে আজ বিভিন্ন অসাধ্যকে সাধন করা সম্ভব হচ্ছে। দেশব্যাপী তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিগত উন্নতির ফলে বর্তমানে বিভিন্ন দৈনন্দিন অত্যাবশ্যক প্রযুক্তি ভিত্তিক পরিসেবা ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে অতি সহজে মানুষের হাতে পৌছে যাচ্ছে ই-লার্নিং, ই-ব্যাংকিং, ই-কমার্স, ই-এগ্রিকালচার, ই-হেলথ, ই-মার্কেটিং ইত্যাদি।


ই-লার্নিং এর প্রসঙ্গে আসা যাক। করোনা মহামারিতে গোটা পৃথিবীর ন্যায় বাংলাদেশও আগের ছন্দে নেই। এই বৈশ্বিক মহামারি যখন আমাদেরকে ঘর বন্দি করে ফেলেছে তখন শিক্ষা ব্যবস্থা একেবারেই অচল হয়ে যাওয়ার কথা, সেখানে আজ বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে আইসিইউতে বাচিঁয়ে রেখেছে ই-লার্নিং পদ্ধতি। যা ভবিষ্যতেও ই-লার্নিং বা অনলাইনে পড়াশোনার পদ্ধতি চরম সম্ভাবনার দিক উন্মোচন করবে। মানব জীবনে শিক্ষা ও জ্ঞান হলো সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় ও অমূল্য সম্পদ। শিক্ষা শুধুমাত্র বইয়ের পাতায় কিংবা চার দেয়ালের বন্ধনীতে আবদ্ধ হতে পারে না। শিক্ষার প্রকৃত রূপ ব্যাপক। করোনা মহামারিতে তথ্য ও যোগাযোগ পদ্ধতির ব্যাপক প্রসারকে কাজে লাগিয়ে শিক্ষা ব্যবস্থার আইসিইউ হিসাবে আবির্ভাব ঘটেছে ই-লার্নিং পদ্ধতির। এই পদ্ধতিকে কাজে লাগিয়ে অভিনব উপায়ে সৃজনশীল পদ্ধতি দ্বারা পৃথিবীর যেকোন প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে বিশ্বমানের শিক্ষার প্রচার-প্রসারনা ব্যাপক ভাবে চাহিদা মিটিয়ে ইতিমধ্যে ই-লার্নিং পদ্ধতি বা অনালইন শিক্ষা ব্যবস্থা ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকদের মাঝে এক নতুন সম্ভাবনাময় দিগন্তের সূচনা হয়েছে।


করোনাকালে স্বাভাবিক শ্রেনীর কার্যক্রম যখন বন্ধ রাখার যৌতিকতা। পৃথিবীর ইতিহাসে ২০২০, ২০২১ একটি চিরস্বরনীয় হয়ে থাকবে। করোনা নামক ভাইরাসের থাবায় প্রাণ কেড়ে নিয়েছে বিশ্ব জুড়ে লক্ষ-কোটি মানুষের। এই ভাইরাস এতটাই সংক্রামক যে মূহুর্তের মধ্যে মানুষ থেকে মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। সেই জন্য বিশ্বব্যাপী ঘোষনা করা হয়েছে অনির্দিষ্টকালীন লকডাউন। সামাজিক দূরত্ববিধি না মেনে এই ভাইরাস ঘটিত রোগ থেকে রক্ষা পাওয়ার আপাতত আর কোন উপায় নেই। পৃথিবীর সকল প্রকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এই সময় বন্ধ হয়েগিয়েছিল। করোনা ভাইরাসের প্রকোপ খানিকটা কমলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে আবার আগের মতো করে চালানোর ঝুঁকি নেওয়া যায়নি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো পূর্বের মতো চালু থাকলে শারীরিক দূরত্ববিধি বজায় রাখা আজও সম্ভব হবে না।

ছাত্র-ছাত্রীরা হলো দেশের ভবিষ্যত। এমন অবস্থাতে স্বাভাবিক শ্রেনীর কার্যক্রম পূর্ণবহাল করার মতন ঝুঁকি নেওয়া একেবারেই যুক্তিযুক্ত হবে না। তাই শিক্ষার প্রচার-প্রসার যাতে থেমে না যায় সেই সময়ই ঘরে ঘরে বিশ্বমানের শিক্ষা পৌছে দেওয়ার ক্ষেত্রে উঠে এসেছে ই-লার্নিং এর শিক্ষা ব্যবস্থা।


এই মহামারির বহু আগে থেকে দূরবর্তী শিক্ষা, মুক্ত শিক্ষা ব্যবস্থা, সৃজনমূলক শিক্ষা, তথ্য শ্রেনীর কার্যক্রমের সমান্তরাল কোচিং ক্লাস ইত্যাদি ক্ষেত্রে আধুনিক তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে ই-লার্নিং এর ব্যবহার প্রচলিত ছিল। এই মহামারিতে ই-লার্নিং এর প্রয়োজনীয়তা ব্যাপক ভাবে অনুভব হয়েছে। যে ই-লার্নিং এতো দিন সামান্য কিছু ক্ষেত্রের মধ্যে সীমাবদ্ধ ছিল, তা আজ বহুমুখি রূপ নিয়ে আশীর্বাদস্বরূপ চলমান শিক্ষা ব্যবস্থার হাল ধরেছে। যা শিক্ষা ব্যবস্থাকে বিশ্বমানের ন্যায় উন্নত শিখরে পৌছে দিতে পারে।


সমৃদ্ধ হোক ই-লার্নিং পদ্ধতি। থেমে নয়, এগিয়ে যাক শিক্ষা ব্যবস্থা। এগিয়ে যাক বাংলাদেশ।

About Bappy Chowdhury

Check Also

৭ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় ডোজ শুরু হবে গণটিকার

মাটি ও মানুষ : বিশেষ প্রতিনিধি :- বুধবার (২৫ আগস্ট) সকালে রাজধানীর কেন্দ্রীয় ঔষধাগার মিলনায়তনে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *