বৃহস্পতিবার , সেপ্টেম্বর ১৬ ২০২১
   বৃহস্পতিবার|১লা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ|১৬ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
    ৮ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি
Breaking News

ময়মনসিংহে জেলা কৃষকলীগের ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস’ পালন

শরাফত আলী শান্ত:  ২১ আগস্ট আজ। নৃশংস হত্যাযজ্ঞের ভয়াল দিন। ১৭ বছর আগে ২০০৪ সালের এই দিনে (২১ আগস্ট) মুহুর্মুহু গ্রেনেডের বিকট বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে ঢাকার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ। মানুষের আর্তনাদ আর কাতর ছোটাছুটিতে সেখানে তৈরি হয় এক বিভীষিকাময় পরিস্থিতি। এদিন আওয়ামী লীগ আয়োজিত সন্ত্রাসবিরোধী মিছিলপূর্ব সমাবেশে দলটির সভাপতি শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা এবং গুলিবর্ষণ করে ঘাতকরা।

২১ আগষ্ট শনিবার ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লাব কার্যালয়ে বাংলাদেশ কৃষকলীগ ময়মনসিংহ জেলা শাখার উদ্যোগে ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস’ উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ কৃষকলীগ ময়মনসিংহ জেলা শাখার সভাপতি আব্দুর রহিম মিন্টু বলেন, আগষ্ট মাস বাঙ্গালী জাতির জন্য কলঙ্কিত ও শোকের মাস। যারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে ১৯৭৫ সালে স্বপরিবারে হত্যা করেছে তাদের মদদাতারাই বঙ্গবন্ধুর কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করার জন্য নীল নকশা করেছিলো। সেই ষড়যন্ত্র এখনো চলছে। এই হত্যার ধারাবাহিক ষড়যন্ত্র বন্ধে ১৫ ও ২১ আগস্টের ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে বলে মনে করি।

তিনি হুঙ্কার দিয়ে বলে, যারা এমন জঘন্য হত্যার পরিকল্পনা করেছিলো তাদেরকে ছাড় দেওয়া হবে না। এদেশের মাটিতে সন্ত্রাসবাদের বিচার বাস্তবায়ন করার দাবি জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষকলীগ ময়মনসিংহ জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবুল, সহ-সভাপতি মোঃ মাহবুব হোসেন খান নয়ন, এম. আরিফ উল্লাহ খান বাপ্পী, শেখ মোঃ কামরুল হাসান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ শরিফ উদ্দিন সহ জেলা ও উপজেলা কৃষকলীগের নেতৃবৃন্দ।

২১ আগষ্ট প্রকাশ্য দিবালোকে রাজনৈতিক সমাবেশে এ ধরনের নারকীয় হত্যাযজ্ঞ পৃথিবীর ইতিহাসে দ্বিতীয়টি খুঁজে পাওয়া বিরল। একটি রাজনৈতিক দলের শীর্ষ নেতৃত্বকে হত্যার উদ্দেশ্যে ভয়াবহ সেই হামলা বাঙালি জাতি কোনোদিনও ভুলবে না। এই ঘটনায় আওয়ামী লীগের ২৪ জন নেতাকর্মী নিহত হন। আহত হন পাঁচ শতাধিক।যা দের অনেকেই চিরতরে পঙ্গু হয়ে গেছেন। কেউ কেউ আজও ফিরে পাননি স্বাভাবিক জীবন। গ্রেনেডের স্প্লিন্টারের দুর্বিষহ যন্ত্রণা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন মৃত্যুর দিকে। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা প্রাণে বেঁচে গেলেও তার শ্রবণশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

২০০৪ সাল থেকে দিনটি ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস’ হিসাবে পালন করা হয়। আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের নেতাদের মতে, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের মধ্য দিয়ে যে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছিল, ২১ আগস্টের ঘটনা তারই ধারাবাহিকতা।

About Bappy Chowdhury

Check Also

হাঁড়িভাঙ্গায় হৃদয় ভাঙছে চাষির!

করোনাভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ ঠেকাতে দেশে কঠোর লকডাউন ঘোষণায় মাথায় হাত পড়েছে ‘হাঁড়িভাঙ্গা’ আম ব্যবসায়ীদের। দুরপাল্লার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *